২৫ রুমের প্রাসাদ, প্রাইভেট জেট, ৯টি গাড়িসহ সৌদি আরবে যেসব সুবিধা পাবেন নেইমার

:: স্পোর্টস ডেস্ক | পাবলিকরিঅ্যাকশন.নেট
প্রকাশ: ১০ মাস আগে
দুই বছরের চুক্তিতে নেইমার এখন আল হিলালে। ছবি: সংগৃহীত

সৌদি আরবে এক রাজকীয় জীবনযাপনই করতে যাচ্ছেন নেইমার। আল হিলালের সঙ্গে মোটা অঙ্কের টাকার চুক্তি তো হয়েছেই। পাশাপাশি বিলাসবহুল বাড়ি, গাড়িসহ নানারকম সুবিধা পেতে যাচ্ছেন তিনি।

আল হিলালের থেকে বছরে ১০ কোটি ইউরো বেতন পাবেন নেইমার। বাংলাদেশি মুদ্রায় তা ১১৯৬ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। ২৫ বেডরুমের বাড়ি পাচ্ছেন। বাড়িতে থাকছে ৪০০ বর্গমিটারের সুইমিং পুল। পাশাপাশি ৩টি সউনা পাচ্ছেন (গরম হওয়ার জন্য ঘর)। বেন্টলি কন্টিনেন্টাল জিটি, অ্যাস্টন মার্টিন ডিবিএক্স, ল্যাম্বারগিনি হুরাকান নামের বিলাসবহুল গাড়িগুলো তিনি পাচ্ছেন। এছাড়া বাড়ির কাজের জন্য ৫ জন স্টাফ সবসময় বাড়িতে পাচ্ছেন তিনি। সার্বক্ষণিক ড্রাইভারও তিনি পাবেন। ভ্রমণের জন্য তাঁকে দেওয়া হবে ব্যক্তিগত বিমান। আর সামাজিক মাধ্যমে সৌদি আরবকে নিয়ে প্রচারণামূলক প্রতি পোস্টের জন্য পাবেন ৫ লাখ ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৬ কোটি টাকা)।

২০০৯ থেকে ২০১৩ পর্যন্ত সান্তোসে খেলার পর নেইমার এরপর চলে যান বার্সেলোনায়। ২০১৭ পর্যন্ত বার্সায় খেলেছেন ১৮৬ ম্যাচ। করেছেন ১০৫ গোল ও ৭৬ গোলে অ্যাসিস্ট করেছেন। বার্সার হয়ে জিতেছেন একটি চ্যাম্পিয়নস লিগ ও দুটি লা লিগা। ২০১৭ সালে বার্সেলোনা থেকে রেকর্ড ট্রান্সফার ফি ২২ কোটি ইউরোতে (বাংলাদেশি মুদ্রায় তা ২৬২৭ কোটি ৬৭ লাখ টাকা) পিএসজিতে এসেছিলেন নেইমার। ৬ বছরে পিএসজিতে ১৭৩ ম্যাচ খেলে করেছেন ১১৮ গোল ও ৭৭ গোলে অ্যাসিস্ট করেছেন।

চলুন দেখে নিই ব্রাজিলিয়ান এই তারকাকে কি কি সুবিধাদি দিতে যাচ্ছে সৌদি আরবের ক্লাব আল-হিলাল।

১. থাকার জন্য নেইমারকে একটি ২৫ বেডরুমের প্রাসাদ দেওয়া হবে।

২. যেখানে থাকবে ব্যক্তিগত সুইমিংপুল। যার আকৃতি ৪০*১০ মিটার!

৩. স্টিম বাথ তথা সাউনা থাকবে তিন-তিনটি।

৪. তার রাজকীয় প্রসাদ সব সময় যাতে ঝকঝকে-তকতকে থাকে সেজন্য থাকবে ৮ জন কর্মচারী।

৫. তাকে ব্যক্তিগত জেট সুবিধাও দিবে আল-হিলাল।

৬. সৌদি আরবের মধ্যে চলাচলের জন্য পাবেন ৯টি বিলাসবহুল গাড়ী। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য- বেন্টলে কন্টিনেন্টাল জিটি, এস্টন মার্টিন ডিভিএস ও ল্যাম্বরঘিনি হুরাকেন। তার সাথে থাকবে ২৪ ঘণ্টা ড্রাইভার।

৭. ছুটির সময়ে তিনি যেখানে ভ্রমণ করবেন, যা খাবেন সেটার সব খরচ বহন করবে আল-হিলাল। শুধু কি তাই? কোনো হোটেল কিংবা রেস্টুরেন্টে তিনি যা খরচ করবেন তার সব ব্যয়ও বহন করবে আল-হিলাল।

এর বাইরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সৌদি আরবকে প্রমোট করে তিনি যদি কোনো পোস্ট দেন তাহলে প্রতি পোস্টের জন্য পাবেন ৪.৫ কোটি টাকা।