‘ভাস্কর’ ৩৩ বছর পূর্তিতে দুই বাংলার কবিদের মিলন মেলায় অনন্য সন্ধ্যা

:: সিলেট ব্যুরো ::
প্রকাশ: ১১ মাস আগে

এপারের নিমন্ত্রণে ওপারের কবিরা এসেছিলেন ছোটোকাগজ ভাস্করের তেত্রিশ বছর পূর্তিতে। নানা রঙের সাজে উপস্থিতিতে এপারের গুণীদেরও মুগ্ধ করলো ক্ষণিকের নাটক আবৃত্তির মাধুর্য ছড়িয়ে।

এক একটা কথার বলি যেন এক অন্য রকম সন্ধ্যা লগ্নের মিষ্টি রোদেলা আলোর রশ্মি। ওপারের কলকাতার স্বপ্নকথা’র আবৃত্তি ও কণ্ঠ নাটক শিল্পীদের শ্রুতি নাটক ও আবৃত্তি সকলকে বিমোহিত করে।

শুক্রবার (২১ জুলাই, ২০২৩) সন্ধায় সিলেট শহরের জিন্দাবাজারে ইমজার হল রুমে এই দুই বাংলার কবি সাহিত্যিকদের মিলন মেলার মাধুর্য ফুটে উঠে ছোটোকাগজের ভাস্করের তেত্রিশ বছর পূর্তিতে।

আবৃত্তি নাটকের শেষে বক্তারা বলেন, সিলেট ও পশ্চিমবঙ্গ দুই দেশের মধ্যে হলেও আমাদের ভাষা এক। আমাদের শিল্প-সাহিত্যের ভাব বিনিময় জোরদার হলে এর সুফল দেখা দেবে। ভাস্কর তেত্রিশ বছরপূর্তি উপলক্ষ্যে পাঁচ মাসের মধ্যে দুটি আন্তর্জাতিকমানের অনুষ্ঠান করে একটি নজির করতে পেরেছে।

কবি পুলিন রায় সম্পাদিত ‘ভাস্কর-এর তেত্রিশ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে সিলেট শহরের জিন্দাবাজারে হলরুমে অনুষ্ঠিত হয় এই ‘শ্রুতি নাটক ও কবিতাপাঠ’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক আরেকটি অনুষ্ঠান। কলকাতার বিখ্যাত শিল্প-সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘স্বপ্নকথা’র শিল্পীবৃন্দসহ অনেকের পারফর্মেন্সে অনুষ্ঠানটি হয়েছিলো আনন্দ-মুগ্ধতায় অনন্য।

উদীচী-সিলেটের সভাপতি বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কবি এনায়েত হাসান মানিকের সভাপতিত্বে সম্মানিত অতিথি ছিলেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সিলেট-এর সভাপতি কবি শামসুল আলম সেলিম, ঢাকার তিন কবি অর্ণব আশিক, কবি কামরুল হাসান ও কবি আরিফ নজরুল এবং সুনামগঞ্জের সতীশ চন্দ্র সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাফেজ মাশহুদ চৌধুরী।

ভাস্কর-এর সম্পাদনা সহযোগী মো. নিয়াজ উদ্দীনের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ‘ভাস্কর’ সম্পাদক আয়োজক পুলিন রায়। সংববর্ধিত অতিথি ছিলেন – কলকাতার ‘স্বপ্নকথা’ সম্পাদক বিশিষ্ট বাচিক শিল্পী ও সঞ্চালিকা শিল্পী স্নাতা, পশ্চিমবঙ্গের ‘ডায়মন্ড হারবার’ প্রেসক্লাবের সভাপতি কবি সাকিল আহমেদ, কলকাতার চারজন কণ্ঠ নাটক শিল্পী শুভাষীশ ঘোষ ঠাকুর, কণ্ঠ নাটক শিল্পী আয়েত্রী ঘোষ ঠাকুর, বাচিক শিল্পী লেখিকা দেবযানী দাস ও বাচিক শিল্পী কৃষ্ণা ঘোষ।

অনুষ্ঠানে কবি সাকিল আহমেদ পশ্চিমবঙ্গের ‘হাজারদুয়ারী কবিতা উৎসব’ শুভেচ্ছা স্মারক কবি পুলিন রায়ের হাতে তুলে দেন। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন রুনা তালুকদার ও পরাগ দেব তমা। আরো উপস্থিত ছিলেন কবি বাবুল আহমদ, ছড়াকার সিরাজ উদ্দীন শিরুল, হীরামোহন রায়, কবি অমিতা বর্দ্ধন, অধ্যাপক জান্নাত আরা খান পান্না, লেখক মোস্তাক চৌধুরী, কবি শামীমা আক্তার ঝিনু, কবি ধ্রুব গৌতম, কবি রাহনামা শাব্বীর চৌধুরী মনি, কবি মাসুদা সিদ্দিকা রুহী, সাংবাদিক অমিতা সিনহা , সাংবাদিক গুলজার আহমদ হেলাল, রিপন আহমেদ, সুপ্রিয় ব্যানার্জি শান্ত, গীতিকবি হরিপদ চন্দ, সৈয়দ আবু জাফর, মো. নাসির উদ্দীন, এমরান ফয়সল, অমিত ত্রিবেদী, শর্মিলা দেব পূরবী, অসীম চন্দ্র পাল জাহাঙ্গীর আলম, , ধনঞ্জয় দাস, বিজয় করীম, সুফি আকবর, রোদ্দুর রিফাত, অনামিকা, আবু সুফিয়ান টিপু, সেনুয়ারা আক্তার চিনু প্রমুখ। এর আগে অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথিদের ‘ভাস্কর’ সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদানসহ ফুলের শুভেচ্ছা জানানো হয়।

উল্লেখ্য, ভাস্কর প্রকাশের তেত্রিশ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে গত ৩ মার্চ সিলেট জেলা পরিষদে দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সাহিত্য উৎসব পালন করা হয়। কলকাতা, ত্রিপুরাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে কবি-লেখক-সম্পাদকদের প্রাণজ উপস্থিতিতে উৎসবটি ছিলো সিলেট নগরীতে ছোটোকাগজ আন্দোলনে এক অনন্য সংযোজন।

সিলেট/ অমিতা সিনহা/ ২২ জুলাই ২০২৩।