বিবাহবিচ্ছেদ কার্যকর হয়নি? কি বলছেন অপু বিশ্বাস

:: আনন্দধারা ডেস্ক | পাবলিকরিঅ্যাকশন.নেট
প্রকাশ: ১১ মাস আগে

এক সময়ের জনপ্রিয় তারকা দম্পতি শাকিব খান-অপু বিশ্বাস। তাদের নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা যেন থামছেই না।ঢালিউডে দীর্ঘদিন ধরেই গুঞ্জন উড়ছে আবারও এক হচ্ছেন শাকিব-অপু।
তবে এক হওয়ার বিষয়ে এখন পর্যন্ত পরিষ্কার করে কিছু জানাননি তারা। আদৌ এই তারকা দম্পতির ডিভোর্স হয়েছিল কি না? সে নিয়ে চলছে জোর আলোচনা। এবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন অপু বিশ্বাস।
বর্তমানে সন্তান জয়কে সঙ্গে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন অপু বিশ্বাস। সেখান থেকে একটি গণমাধ্যমে অপু বিশ্বাস বলেন, ২০১৭ সালের শেষের দিকে শাকিব বিবাহবিচ্ছেদের জন্য আবেদন করেছিল ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের (অঞ্চল-৩) মহাখালী জোনাল অফিসে। সেই আবেদন নিয়ে ওই সময় সালিস হয়। সম্প্রতি ওই সালিসের একটি ভিডিও সামাজিকমাধ্যমে ছড়িয়েছে। আমি ভিডিওটি দেখেছি। বিষয়টি নিয়ে সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে কথা বললে ভালো হয়। তারা এ বিষয়ে পরিষ্কার করতে পারবেন।
অপু আরও বলেন, বিষয়টি খুবই সেনসিটিভ। তাই আগেভাগে কিছু বলতে চাচ্ছি না। কারণ, আমরা যখন সম্পূর্ণ আলাদা হয়ে গিয়েছিলাম, তখন রাগের বশে না বুঝে অনেক কথা বলে ফেলেছিলাম। এ জন্য আমাকে ভুগতে হয়েছে। আমি আর ভুগতে চাই না। আমার মা-বাবা পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছেন। আমি নতুন করে বাবা-মা পেয়েছি। শুধু স্বামী নয়, সন্তান, শ্বশুর, শাশুড়ি, ননদসহ পরিবারের সবাইকে নিয়ে সুন্দর জীবন পার করতে চাই। তাই একটু সময় দিন আমাকে, সুন্দর সময়ে সুন্দর কথাগুলো বলব।
ভালোবেসে ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল বিয়ে করেন শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। তবে ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল সন্তানসহ একটি বেসরকারি টেলিভিশনে লাইভে এসে বিয়ে ও সন্তানের বিষয়ে কথা বলেন অপু। এর ক’দিন পরই মতের অমিল দেখা দেয় তাদের দাম্পত্য জীবনে।

অনেক জল ঘোলা করে ২০১৭ সালের ২২ নভেম্বর ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের (অঞ্চল-৩) মহাখালী জোনাল অফিসে অপু বিশ্বাসের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের জন্য আবেদন করেছিলেন শাকিব খান। ওই সময় আবেদনটি নিয়ে সালিস হয়। শাকিব উপস্থিত না হলেও অপুর উপস্থিতিতে আবেদনের শুনানি হয়। সেই সালিসের একটি ভিডিও সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিকমাধ্যমে।
ওই ভিডিওতে সিটি কর্পোরেশনের এক কর্মকর্তাকে বলতে শোনা যায়, আমাদের আজকের সালিস কেসে বিবাদী অপু বিশ্বাস উপস্থিত হয়েছেন। তার বক্তব্য প্রদান করেছেন। আসলে তিনি বিষয়টি মীমাংসা করতে চান, স্বামী নিয়ে সন্তান নিয়ে ঘর-সংসার করতে চান। কিন্তু বাদী উপস্থিত হননি। সাধারণ একটি সাদা কাগজে আবেদন পাঠিয়েছেন তিনি। কাজী অফিসের মাধ্যমে কোনো রেজিস্ট্রি হয়ে আসেনি এটি। এমনকি কোনো কাবিননামা, কোনো সাক্ষী বা কোনো হলফনামা নেই।
মূলত এরপর থেকে শাকিব-অপুর বিবাহবিচ্ছেদ হওয়া না হওয়ার বিষয়টি সামনে চলে আসে। ভিডিওটি দেখে অনেকে ধারণা করছেন, এখনও তাদের বিচ্ছেদ কার্যকর হয়নি!
বিবাহবিচ্ছেদের আবেদন করার আগে থেকেই সন্তানকে নিয়ে আলাদা থাকলেও সন্তান জয় প্রায় দিনই বাবা শাকিবের বাসায় সময় কাটায়। তবে বছরখানেক ধরে সন্তানের সঙ্গে অপু বিশ্বাসেরও শাকিবের বাসায় যাওয়া-আসা বেড়েছে। দুজনের মধ্যে দেখা-সাক্ষাৎ, কথাবার্তাও হয়। আর এর জের ধরেই বেশ কিছুদিন ধরেই ঢালিউডে কানাঘুষা চলছে, আবারও এক হতে পারেন শাকিব-অপু।