বদলী করা হতে পারে এডিসি সানজিদাকেও

:: পাবলিক রিঅ্যাকশন রিপোর্ট
প্রকাশ: ৯ মাস আগে

ছাত্রলীগ নেতাদের নির্যাতনকাণ্ডে সাময়িক বরখাস্ত এডিসি হারুন অর রশীদকে ইতিমধ্যে রংপুর রেঞ্জে সংযুক্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. মাহাবুর রহমান শেখ এর সাক্ষর করা এসংক্রান্ত এক প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

এরপর গুঞ্জন ওঠে এই কাণ্ডে জড়িত থাকা আরেক এডিসি সানজিদা আফরিনকেও রংপুরে বদলি করা হচ্ছে। গতকাল রাত থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলে এই নিয়ে আলোচনা।

তবে এডিসি সানজিদাকে রংপুরে বা অন্য কোথাও বদলির কোন আদেশ এখনো ডিএমপিতে আসেনি বলেন জানিয়েছেন ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন বিভাগের উপকমিশনার ফারুক হোসেন।

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত এমন কোনো অর্ডার হয়নি। এডিসি সানজিদার বদলি বিষয়ে কোনো আদেশের কপি পাইনি।

আরও পড়ুন: ‘আপনি অসুস্থ, হাজব্যান্ড জানে না, স্যার কীভাবে জানে?’

তবে পুলিশ সদর দপ্তরেরঅন্য একটি সূত্র জানায়, এডিসি সানজিদা আফরিনকে বদলির চিন্তা-ভাবনা চলছে।

সূত্রটি জানায়, এডিসি সানজিদাকেও বদলির আলোচনা চলছে। তবে কোথায় বা কখন বদলি করা হবে তা এখনো নিশ্চিত করতে পারেনি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে পুলিশ সদর দপ্তরের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, সানজিদাকে বদলির চিন্তা-ভাবনা চলছে। তবে এখনো কোন আদেশ কপি আমার কাছে এসে পৌঁছায়নি।

এদিকে ওই ঘটনা তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে কমিটিকে পাঁচ কার্যদিবস সময় বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে ডিএমপি কমিশনার সময় বাড়ানোর অনুমতি দিয়েছেন।

কে এই এডিসি সানজিদা?

শাহবাগ থানায় নিয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দুই নেতাকে পেটানোর ঘটনায় আলোচনায় এসেছেন পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) সানজিদা আফরিন নিপা। তিনি ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (এডিসি) হিসেবে কর্মরত এবং ৩১তম বিসিএস কর্মকর্তা। তিনি রাষ্ট্রপতির সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) আজিজুল হকের স্ত্রী।

সানজিদা আফরিনের গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার গোপালপুরের নাগদা শিমলা ইউনিয়নে। তিনি এম হোসেন আলীর মেয়ে। তার বড় বোন পেশায় একজন ডাক্তার।

২০১৬ সালের ৫ মে থেকে ২০২১ সালের ৭ জানুয়ারি পর্যন্ত পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চে ছিলেন সানজিদা। এরপর ২০২১ সালের ৬ মে থেকে ২০২২ সালের ৭ নভেম্বর পর্যন্ত গাজীপুর সদর সার্কেলে এএসপি হিসেবে কর্মরত ছিলেন তিনি। ২০২২ সালের ১৩ নভেম্বর তিনি ডিএমপিতে যোগদান করেন।

গুঞ্জন উঠেছে এডিসি হারুনের সঙ্গে তার ‘বিশেষ’ সম্পর্ক রয়েছে। তবে তা অস্বীকার করেছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘একটি ছবি ছড়িয়ে দিয়ে হারুন স্যারের সঙ্গে আমার বিয়ের কল্পকাহিনী প্রচার করছে।…হারুন স্যারের সঙ্গে আমার কোনো ব্যক্তিগত সম্পর্ক নেই। তিনি শুধুমাত্র আমার কলিগ।’

প্রসঙ্গত, শাহবাগ থানায় নিয়ে ছাত্রলীগের দুই কেন্দ্রীয় নেতাকে নির্যাতনের ঘটনায় আলোচনায় এসেছেন এডিসি সানজিদা আফরিন।